লকডাউন উপেক্ষা করে মাওলানা যোবায়ের আহমদ আনসারীর জানাযায় লাখো মানুষের ঢল

লক ডাউন উপেক্ষা করে মাওলানা যোবায়ের আহমদ আনসারীর জানাযায় লাখো মানুষ

 

প্রখ্যাত মোফাসসিরে কুরআন ও বরেণ্য ইসলামী আলোচক আল্লামা মাওলানা যোবায়ের আহমদ আনসারীর জানাজায় লাখো মানুষের সমাগম হয়েছে। দেশব্যাপী করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে লকডাউন উপেক্ষা করে বিপুল সংখ্যক মানুষ তার জানাজায় অংশ নেন।

আজ ১৮ এপ্রিল শনিবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জামিয়া রহমানিয়া বেড়তলা মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে এই জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তবে মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে জায়গা সংকুলান না হওয়ায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দুই পাশেও হাজার হাজার মানুষ জানাজায় শরিক হন।

একদিকে বিশ্বরোড মোড় হয়ে সরাইলের মোড় পর্যন্ত অন্যদিকে আশুগঞ্জে কাছাকাছি গিয়ে ঠেকে লোকজন। এছাড়া ওই এলাকার বিভিন্ন ভবনের ছাদেও মানুষের উপস্থিতি দেখা গেছে।

বিভিন্ন স্থানের শীর্ষ আলেম-ওলামা ছাড়াও মাদ্রাসার ছাত্র এবং অগণিত সাধারণ মানুষ আনসারী সাহেবের জানাজায় অংশ নেন। জানাযায় ইমামতি করেন মাওলানা আনসারীর ছেলে হাফেজ মাওলানা আসাদ উল্লাহ।

 

 

সরাইল থানার ওসি মো. শাহাদাত হোসেন টিটু যুগান্তরকে বলেন, মাওলানা আনসারীর জানাজায় লাখো মানুষের সমাগম হয়েছিল। ব্রাহ্মণবাড়িয়া ছাড়াও ঢাকা থেকে লোকজন এসেছে। আমরা চিন্তাও করতে পারিনি যে এত লোক হবে। লোকজন আসতে শুরু করার পর আমাদের আর কিছু করার ছিল না।

প্রসঙ্গত শুক্রবার বিকাল ৫টা ৪৫ মিনিটে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের মার্কাসপাড়ায় নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন যোবায়ের আহমদ আনসারী। তার বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর। তিনি স্ত্রী, তিন ছেলে, চার মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মাওলানা যুবায়ের আহমেদ আনসারী বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশের নায়েবে আমির এবং বেড়তলা মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ ছিলেন। এ ছাড়া তিনি একাধিক মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। বরেণ্য ইসলামী চিন্তাবিদ ও জনপ্রিয় বক্তা হিসেবে খ্যাতি রয়েছে তার বিশ্বজুড়ে।

Tagged

Leave a Reply

Your email address will not be published.