দিল্লি পুলিশ মাওলানা সাদ সাহেবের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা

দায়ের করেছে : তদন্তকারীরা খাস কামরায় তল্লাশি চালায়

ভারতে তাবলীগ জামাতের মুরব্বী মাওলানা সাদ কান্ধলভীর বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত হত্যার মামলা দায়ের করেছে দিল্লি পুলিশ। গতমাসে দিল্লির মারকাজ নিজামুদ্দিনে তাবলীগের যে সমাবেশ হয়েছিল, সেখানে যোগ দেয়ার পরে বেশ কয়েকজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। সে কারণে পূর্বে কৃত এফআইআর-সাথে এবার ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৪ ধারা অনুযায়ী অনিচ্ছাকৃত হত্যার ধারা সংযুক্ত করা হল।

পুলিশ বলছে, সরকারী নির্দেশ ভেঙ্গে ওই জমায়েত করার জন্য আগেই তার বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছিল। কিন্তু জমায়েতের কয়েকজন মারা যাওয়ার পরে হত্যার অভিযোগ দায়ের করা হল। সূত্র : বিবিসি

একইসঙ্গে পুলিশের পক্ষ থেকে তাবলীগ জামাতের দিল্লির মারকাজে যোগ দেয়া ১ হাজার ৮৯০ বিদেশি নাগরিকের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিশ জারি করা হয়েছে। এছাড়া, মারকাজের সাথে যুক্ত ১৮ জনকে নোটিশ দিয়ে তাদের তদন্তে যোগ দিতে বলেছে।

ওদিকে, বিহারের বিভিন্ন জেলা থেকে তাবলীগ জামাতের সঙ্গে যুক্ত ৫৭ বিদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছে বিহার পুলিশ। তাদের পাসপোর্টও আটক করা হয়েছে। ৫৭ জন বিদেশি নাগরিকের মধ্যে পাটনা থেকে ১৭, কিষাণগঞ্জ থেকে ১১, আরারিয়া থেকে ১৮, এবং বাক্সার থেকে ১১ জন  বিদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পাটনার সিনিয়র পুলিশ সুপার উপেন্দ্র শর্মা বলেন, কিরঘিজস্তানের ১৭ নাগরিক পর্যটন ভিসায় এসে ভিসা নিয়ম লঙ্ঘন করে ধর্মপ্রচার চালাচ্ছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে ফরেনার্স অ্যাক্টের অধীনে এফআইআর দায়ের করে ধৃতদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে, ১৫ এপ্রিল এবিপি নিউজ হিন্দি টিভি চ্যানেলের ওয়েবসাইট এবিপিলাইভ ডটকম-এ বলা হয়েছে, দিল্লি পুলিশের অপরাধ শাখা তাবলীগ জামাত সদর দফতরে তাবলীগের প্রধান মাওলানা সাদের কামরায় তল্লাশি করেছে। পুলিশ মারকাজে আসা তহবিল এবং লেনদেনের নথিপত্র খোঁজ করছে। পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চের পক্ষ থেকে মাওলানা সাদের ছেলেদেরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। এ পর্যন্ত ১৪ জনেরও বেশি মানুষকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এর পাশাপাশি অনেক লোককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিশ জারি করা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত যাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তাদের মধ্যে মারকাজের তিন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি রয়েছেন।

সূত্র : পার্সটুডে