করোনার দুর্যোগে ঘরে নামায পড়ার নির্দেশ দিয়েছে ধর্মমন্ত্রণালয়

এখন থেকে মুসল্লীদের ঘরে নামায পড়ার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শুধু মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেমগণ মসজিদে নামায আদায় করবেন। বাইরের মুসল্লীগণ কেউ মসজিদে জামা‘আতে অংশ নিতে পারবেন না। কেউ এই নির্দেশ অমান্য করে মসজিদে ভিড় করলে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ব্যবস্থা নেবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সাখাওয়াৎ হোসেন-এর সই করা এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, ভয়ানক করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে মসজিদের ক্ষেত্রে খতীব, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেমগণ ছাড়া অন্য সব মুসল্লীগণ নিজ নিজ বাসায় নামায আদায় করবেন। মসজিদে গিয়ে জুমু‘আর নামাযের জামা‘আতে অংশগ্রহণের পরিবর্তে সকল যার যার ঘরে জোহরের নামায আদায় করবেন। এটা সরকারের নির্দেশ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মসজিদে জামা‘আত চালু রাখার প্রয়োজনে খতীব, ইমাম, মুয়াজ্জিন ও খাদেমগণ মিলে পাঁচওয়াক্তের নামায অনধিক পাঁচজন এবং জুমু‘আর জামা‘আতে অনধিক ১০ জন শরীক হতে পারবেন। বাইরের মুসল্লী মসজিদে জামা‘আতে অংশ নিতে পারবেন না। এই নির্দেশ কেউ অমান্য করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ বলেন, করোনা-ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সবাই কঠোরভাবে এই নির্দেশনা মানবেন বলে তিনি মনে করেন। অন্যথায় শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

এ নির্দেশনা অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে বলে জানানো হয়।