Category Archives: লাইফস্টাইল

বেশি পানি পান করলে বাড়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

রাহবার: বিশ্বজুড়ে বেড়েই চলেছে করোনভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। তাই এই সময়ে নিজের যত্ন নেয়া খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সামাজিক দূরত্বের অনুশীলন, স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখা এবং যথাসম্ভব ঘরে বসে থাকাই মারাত্মক ভাইরাসের সংস্পর্শে আসার হাত থেকে নিজেকে বাঁচানোর সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য উপায়।

এরপর যা করতে পারেন তা হলো স্বাস্থ্যকর এবং পুষ্টিকর খাবার খাওয়া। তাতে করে আপনি যদি কোনোরকমভাবে ভাইরাসের সংস্পর্শে আসেন তবে আপনার দেহ তার সঙ্গে লড়াই করতে সক্ষম হবে। বেশ কয়েকটি খাবার এবং পানীয় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং রোগজনিত ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাসের সাথে লড়াই করতে সাহায্য করতে পারে। অবাক করা বিষয় হলো, পানি আমাদের রোগ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করতে পারে। এটি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য কীভাবে উপকার করে তা জেনে নিন-

পানির গুরুত্ব: পানি জীবনের মূল প্রয়োজনীয়তা। এটি শরীরের বিভিন্ন অংশে পুষ্টিকর এবং খনিজ বহন করে এবং বর্জ্য বের করে দেয়। এছাড়াও এটি শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে।

পানি যেভাবে সুস্থ রাখে: সাধারণভাবে কেউ অসুস্থ থাকলে বা জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার সময় তাদের হাইড্রেটেড রাখার পরামর্শ দেয়া হয়। কারণ পানি আমাদের শরীর থেকে প্রাকৃতিকভাবে অসুস্থতাজনিত টক্সিন এবং ব্যাকটেরিয়া দূর করতে সহায়তা করে।

পানি শরীরের বিভিন্ন কোষে অক্সিজেন বহন করতেও সহায়তা করে। ফলে শরীরের সঠিক ক্রিয়া সম্পন্ন হয়। স্বাস্থ্যকর এবং ফিট থাকার জন্য প্রতিদিন কমপক্ষে দুই লিটার পানি পান করার পরামর্শ দেয়া হয়। অসুস্থ হলে পানি পানের পরিমাণ বাড়ানোর চেষ্টা করুন। শুধু পানি সবচেয়ে ভালো, তবে যদি আপনার দিনে আট গ্লাস পানি পান করতে অসুবিধা হয় তবে লেবু বা পুদিনা যোগ করতে পারেন। এগুলোও স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী।

পুদিনা ও পানি: পুদিনা একটি মূল্যবান ঔষধি যা আয়ুর্বেদিক ওষুধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যযুক্ত পুদিনা ফ্রি র‌্যাডিকাল ক্রিয়াকলাপ রোধ করতে সহায়তা করে। এটি আমাদের শরীরকে ডিটক্স করতে সহায়তা করতে পারে এবং এটি ত্বকের জন্যও ভালো।

লেবুপানি: লেবুতে উপস্থিত প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ফোলেট এবং পটাসিয়ামও আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করতে পারে। দিনের শুরুতে একগ্লাস লেবুর রস মেশানো হালকা গরম পানি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য বিস্ময়কর উপকারিতা বয়ে আনতে পারে।

লকডাউনে মোবাইল-ল্যাপটপে দৃষ্টি সারাক্ষণ, যেভাবে রক্ষা করবেন চোখ

রাহবার: ঘরবন্দি সময়ে একটানা মোবাইল, ল্যাপটপ দেখতে দেখতে চোখের দৃষ্টি ঝাপসা। ভালো করে দেখতেই পাচ্ছেন না! অনেকের এরই সঙ্গে চোখে জ্বালা, ব্যথা, কড়কড়ানি ভাব। যেন ধুলোবালি ঢুকেছে চোখে। চোখ ফুলে লাল। জলও গড়াচ্ছে। জল শুকিয়ে যাচ্ছে চোখের। যে উপায়ে এই সমস্যা থেকে রেহাই পেতে পারেন আসুন জেনে নেই।

১. কাজের ফাঁকে ছুটি নিন
প্রতি ১৫-২০ মিনিট অন্তর স্ক্রিন থেকে বিরতি নিন। কয়েক সেকেন্ড চোখ বন্ধ করে রাখুন। আপনার চোখের চারপাশের পেশীগুলি মাসাজ করুন। দুই ঘন্টার মধ্যে চোখে জলের ঝাপটা দিন। কিন্তু কখনোই হাত দিয়ে চোখ ঘষবেন না। চোখ শুকনো লাগলে চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে আই ড্রপ ব্যবহার করতে পারেন।

২. নির্দিষ্ট সময় অনলাইন থাকুন
চেষ্টা করুন হাতের কিছু কাজ শিখতে। তাহলে কম সময় অনলাইনে থাকবেন। বাকিটা সময় হাতের কাজ তৈরিতে কাটবে। আপনার চোখ কম ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

৩. পরিবারের সঙ্গে সময় কাটান
পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো মানেই মোবাইল বা ল্যাপটপে কম সময় খরচ করা। তাই অবসরে পরিবারের সঙ্গে আড্ডা মারুন। চোখ থাকবে সতেজ।

৪. পুষ্টিকর খাবার খান
বাদাম, আখরোট, মাছ এবং সাইট্রাস ফল ডায়েটে রাখুন। এগুলি পুষ্টি বাড়ায়। চোখ ভালো রাখে। কিছু খাবার আপনার চোখের জন্য ভাল। ওবেসিটি, টাইপ ২ ডায়াবেটিস কমায়। মাছের মধ্যে থাকা মেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড অন্ধত্ব দূর করে।

৫. আলোর তলায় বসে কাজ করুন
অন্ধকারে বসে মোবাইল বা ল্যাপটপ দেখবেন না। এতে চোখ বেশি করে খারাপ হবে। উজ্জ্বল আলোর নীচে বসে কাজ করুন বা অনলাইনে থাকুন। সমস্যা কম হবে।

সূত্র: এনডিটিভি

পরিসংখ্যান; করোনায় ধূমপায়ীরাই সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত

রাহবার: ধূমপায়ীরা করোনায় বেশি আক্রান্ত হচ্ছে বলে উঠে এসেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) এক পরিসংখ্যানে। কারণ করোনা সরাসরি শ্বাসযন্ত্রকে আক্রমণ করে। ফলে যাঁরা ধূমপান করেন তাঁদের আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কয়েকগুণ বেশি।

বিশ্ববাসীকে ডাব্লিউএইচও বারবার ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ করেছে। এদিকে করোনা যখন ক্রমশ বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে তখনও তামাকজাত দ্রব্যের চাহিদা তুঙ্গে। এবার বিশ্বজুড়ে করোনা আক্রান্তদের পরিসংখ্যান বলছে আক্রান্তরা বেশিরভাগই ধূমপায়ী।

চিন, ইতালি, স্পেন, আমেরিকায় আক্রান্তদের হিসেব বলছে আক্রান্তদের অধিকাংশই ধূমপায়ী। ‘দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিন’-এর প্রকাশিত সমীক্ষায় এটাই স্পষ্ট। সংস্থাটি কারণ হিসেবে জানায় কেন ধূমপায়ীদের অসুস্থ হয়ে পড়ার প্রবণতা বেশি?

ফুসফুসে সরু সরু চুলের মতো সিলিয়া থাকে। এগুলো ধুলোবালি থেকে জীবাণু, সব কিছু থেকে ফুসফুসকে রক্ষা করত। কিন্তু ক্রমাগত ধুমপান করলে এই সিলিয়াগুলো নষ্ট হয়ে যায়। ফলে জীবাণু প্রতিরোধ ক্ষমতা তাদের থাকে না। তাই ধূমপান করলে যক্ষা, নিউমোনিয়া, ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো রোগে তাড়াতাড়ি আক্রান্ত হন ধূমপায়ীরা। আর করোনা তো সরাসরি ফুসফুসেই আক্রমণ করে।

১০ লাখ অভিবাসী নিতে আগ্রহী কানাডা

কানাডা আগামী তিন বছরে ১০ লাখের বেশি নতুন অভিবাসীকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত কানাডা।

সিএনএনের খবরে জানানো হয়, কানাডার পার্লামেন্ট আগামী তিন বছরে ১০ লাখের বেশি নতুন অভিবাসীকে স্থায়ী বাসিন্দা হিসেবে নেওয়ার পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। এটি প্রতিবছর দেশের মোট জনসংখ্যার ১ শতাংশ প্রায়।

কানাডা ২০১৭ সালে ২ লাখ ৮৬ হাজারের বেশি অভিবাসীকে স্বাগত জানিয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, এ বছর এই সংখ্যা ৩ লাখ ৫০ হাজার হতে পারে। ২০২০ সালে সংখ্যাটা হবে ৩ লাখ ৬০ হাজার এবং পরের বছর এটা হবে ৩ লাখ ৭০ হাজার।

কানাডার অভিবাসন, শরণার্থী ও নাগরিকত্ব (আইআরসিসি) বিষয়ক মন্ত্রী আহমেদ হোসেন যাঁরা নতুন অভিবাসী হিসেবে কানাডায় যাবেন, তাঁদের আগাম ধন্যবাদ জানিয়েছেন। মন্ত্রী নিজেও সোমালিয়া থেকে যাওয়া একজন অভিবাসী।

যুক্তরাষ্ট্র যেখানে দিন দিন অভিবাসন নীতি কঠোর করছে, সেখানে উদার অভিবাসন নীতির জন্য জনপ্রিয়তা ও খ্যাতি অর্জন করছে কানাডা। এ কারণে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিকেরা কানাডামুখী হচ্ছেন।
Tagged ,