রাহবার নিউজ ডেস্ক: হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ হাটহাজারী উপজেলা শাখার পরিচিতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ এর আমীর শায়খুল হাদীস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন দাঁড়ি থাকার কারণে চাকুরী না দেয়াটা মহানবী(সঃ) এর আদর্শের সাথে যুদ্ধ ঘোষণার শামিল তিনি বলেন, দাঁড়ি থাকার কারণে চাকুরী না দিয়ে কার্যত মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর সুন্নাহকে হেয় করেছে এবং রাসুলের আদর্শের সাথে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে আড়ং কর্তৃপক্ষ। এটা কখনো বরদাশত করা যায় না। এরজন্য অবশ্যই তাদেরকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। ৯০% মুসলমানের দেশে দাড়ি থাকার কারণে ইন্টারভিউতে পাশ করা সত্বেও একজন মুসলমানকে চাকুরী দেবে না তা কখনো মেনে নেওয়া যায় না।

হাটহাজারী সিটি প্যালেস কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে ভারতে কুরআনের আয়াত বাতিলের রিট প্রসঙ্গে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে হেফাজত আমীর বলেন, মানব জাতির মুক্তির সনদ পবিত্র কুরআনের আয়াত বাতিলের রিট করার অপরাধে কুখ্যাত কাফের শিয়া ওয়াসিম রিজভীকে ফাঁসি দিতে হবে। এটা বিশ্বের পৌনে দুইশো কোটি মুসলমানের দাবী। এই কুলাঙ্গারকে ফাঁসি না দেওয়া পর্যন্ত মুসলিমবিশ্ব শান্ত হবে না। এর বিরুদ্ধে আমাদের শান্তিপূর্ণ জোরদার আন্দোলন চলবেই।

ভারতের আদালতে কোন ন্যায় বিচার নেই দাবী করে তিনি বলেন, ন্যায় বিচার থাকলে আদালত কখনো কুরআন বিরোধী ভিত্তিহিন রিট গ্রহণ করতো না। ওয়াসিম রিজভীর দায়ের করা রিট গ্রহণ করে ভারতের আদালত প্রকাশ্যে ইসলামের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। এই রিট খারিজের ব্যবস্থা না করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও ওয়াসিম রিজভীকে মৌন সমর্থন দিয়েছে। এর জন্য ভারতকে মুসলিম বিশ্বের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। কুখ্যাত ওয়াসিম রিজভী কুরআনে বর্ণিত জিহাদের আয়াত নিয়ে আপত্তি তুলেছে, আমাদের মনে রাখতে জি হা দ ইসলামের অন্যতম ফরজ বিধান। জি হা দ সন্ত্রাস নয়, সন্ত্রাস জি হা দ নয়। জি হা দ জালেমের বিরুদ্ধে মজলুমের লড়াই, জি হা দ হলো অন্যায় অবিচারের মোকাবেলায় ন্যায়ের লড়াই। জি হা দ শান্তি, জি হা দ মুক্তি। জি হা দ হলো জুলুম নির্যাতন আর সন্ত্রাস দমনের মাধ্যম। উপযুক্ত পরিবেশ হলে আল্লাহর জমিনে আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠা করতে আমাদেরকে জি হা দ করতে হবে।

হাটহাজারী মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষা পরিচালক ও হেফাজতে ইসলাম হাটহাজারী উপজেলা শাখার সভাপতি মাওলানা শোয়াইব জমিরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদুল হোসাইন, সি: যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা এমরান সিকদার ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা কামরুল ইসলাম এর যৌথ সঞ্চালনায় এতে আরও বক্তব্য রাখেন হাটহাজারী মাদ্রাসা পরিচালনা পরিষদের সদস্য আল্লামা শেখ আহমদ, হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা নাছির উদ্দিন মুনির, সহকারী মহাসচিব মাওলানা জাফর আহমদ, কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মীর ইদ্রিস, কেন্দ্রীয় সহ দাওয়াহ বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা ওমর ফারুক ফরিদী, কেন্দ্রীয় সহ অর্থ সম্পাদক জনাব আহসান উল্লাহ, মাওলানা আবু আহমদ, মাওলানা নসীম, মুফতী শিহাব উদ্দিন, মাওলানা আশরাফ হোসাইন, মাওলানা হাফেজ ইসমাইল, মাওলানা হুসাইন ফয়জী, মাওলানা আব্দুল্লাহ, মাওলানা আবু তৈয়ব আব্দুল্লাহপুরী, মাওলানা জাহাঙ্গীর আলম মেহেদী,  মাওলানা হাফেজ আলী আকবর, মাওলানা ইয়াছিন, মাওলানা হাফেজ মোস্তফা, মাওলানা তাজুল ইসলাম, মাওলানা আমিনুল হক, মাওলানা এমরান খন্দকিয়া, মাওলানা ইন’আমুল হাসান ফারুকী, মাওলানা ওমর ফারুক, হাফেজ আব্দুল মাবুদ, মাওলানা নিজাম সাইয়্যিদ, মাওলানা আসাদুল্লাহ আসাদ প্রমূখ নেতৃবৃন্দ।