ফয়জুল্লাহ আল হাবীব: গতকাল শেষ হয়েছে কওমী মাদরাসার সর্বোচ্চ শিক্ষাসংস্থা আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের অধিনে দাওরায়ে হাদিস (তাকমিল) পরীক্ষা। এ বছর দাওরায়ে হাদিস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে ২২৩৪২ জন শিক্ষার্থী।

সদ্য ফারেগ হওয়া এ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে নসিহতমূলক বক্তব্য রেখেছেন বাংলাদেশের সর্বপ্রাচীন ও বৃহৎ ইসলামী বিদ্যাপীঠ আল জামেয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার প্রধান শায়খুল হাদিস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) পরিক্ষা শেষে পরীক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, দ্বীনি খেদমত যতই ছোট হোক তাকে কখনো ছোট মনে না করে এখলাসের সাথে তা আঞ্জাম দিবে। এখলাসের সাথে মক্তবে পড়ানো বোখারী শরীফ পড়ানোর সমান সওয়াব। সাথে সাথে দাওয়াতে তাবলিগের কাজে বিশেষ মেহনত করবে।

জামিয়ার শান্ত পরিবেশ এবং নিয়মতান্ত্রিক কার্যক্রম সম্পর্কে সঠিক তথ্য মানুষের কাছে তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের প্রাণপ্রিয় শায়খ আল্লামা শাহ আহমাদ রহঃ এর মৃত্যু নিয়ে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে। চলমান পরিস্থিতি নিয়ে যেন কোনরকম গুজব ছড়ানো না হয়। তোমরা সেদিকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখবে।

তিনি বলেন, আমাদের শায়খ অসুস্থ হয়ে পড়ায় সাথে সাথে চট্টগ্রাম হসপিটালে ভর্তি করা হয়। অতপর সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকার আজগর আলি হসপিটালে স্থানান্তর করা হয় এবং সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তিকাল করেন।

তিনি আরো বলেন, হযরতের ইন্তিকালের পর মজলিসে শুরা কর্তৃক নির্ধারিত দুটি কমিটি মাজলিশে ইদারা ও মজলিশে ইলমীর সিদ্ধান্তে মাদ্রাসা পরিচালিত হচ্ছে। এমনকি শিক্ষক যোগ-বিয়োগসহ যাবতীয় কাজ মাজলিসে ইদারা ও মাজলিসে ইলমী’র পরামর্শ অনুযায়ী আঞ্জাম দেওয়া হচ্ছে।