পাকিস্তানে বন্ধ হলো সরকারি খরচে মন্দির নির্মাণ

রাহবার: পাকিস্তানে বিভিন্ন ইসলামি সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের দাবি এবং আলেমদের নির্দেশনার প্রেক্ষিতে সরকারি অর্থায়নে মন্দির নির্মাণের ঘোষণা থেকে সরে এসেছে ইমরান খানের সরকার।

ইসলামাবাদের এইচ-৯/২ সেক্টরে ওই মন্দির নির্মাণের কথা ছিল। পাকিস্তানের মানবাধিকার বিষয়ক সংসদীয় সম্পাদক লাল চাঁদ মাহি গত সপ্তাহেই মাটি খুঁড়ে মন্দির প্রতিষ্ঠার কাজের উদ্বোধন করেছিলেন।

জানা যায়, প্রথমে জামিয়া আশরাফিয়া নামের একটি প্রতিষ্ঠান সরকারি অর্থায়নে মন্দির প্রতিষ্ঠা নিয়ে প্রশ্ন তোলে।
জামিয়া আশরাফিয়া মন্দির নির্মাণ থামাতে ফতোয়াও জারি করে। পরে অন্য অনেক সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান জামিয়া আশরাফিয়ার মতকে সমর্থন করতে থাকে।

তাদের দাবি ছিল, পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের যে কয়েকটি ধর্মস্থান রয়েছে, সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণ করা যেতে পারে। কিন্তু নতুন করে আর কোনো মন্দির নির্মাণ করা যাবে না। জনগণের করের টাকায় মন্দির নির্মাণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল ওই সংগঠন।

তাদের জারি করা ফতোয়ার পর পাকিস্তান সরকার মন্দির নির্মাণের কাজ স্থগিত রাখল।

পাকিস্তানের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় ভাবাবেগের মূল্য দেওয়া হবে। তবে আপাতত মন্দির নির্মাণের কাজ বন্ধ রাখা হবে। ভবিষ্যতে ওই মন্দির নির্মাণের জন্য অনুদান দেওয়ার ব্যাপারে চিন্তা করা হবে।

সূত্র: ডেইলি জঙ উর্দু।

Leave a Reply

Your email address will not be published.