তাবলিগের ব্যাপারে দারুল উলুম দেওবন্দের নতুন সিদ্ধান্ত

উবায়দুল্লাহ আসআদ কাসেমী: তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষের সঙ্কট না মেটা পর্যন্ত ভারতের দারুল উলূমের দেওবন্দ দুই গ্রুপের কোনো দিকেই সম্পর্ক রাখবে না বলে ফের জানিয়ে দিয়েছে। উপমহাদেশে শ্রেষ্ঠ দীনি এ বিদ্যাপীঠ দ্বিতীয় বারের মতো তাদের অবস্থান জানালো।

আজ (১৭ জানুয়ারি) দারুল উলুম দেওবন্দের মুহতামিম মাওলানা আবুল কাসেম নুমানী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি স্পষ্ট করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দ্বীনের প্রচার, ইসলামের দাওয়াত আমাদের দায়িত্ব। কিন্তু তাবলীগের পারস্পরিক দ্বন্দ্বে সৃষ্ট ফিতনা থেকে দারুল উলূমকে রক্ষার জন্য দারুল উলূমের দায়িত্বশীলরা প্রথম থেকেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন; দারুল উলূমের প্রত্যেক সন্তান উভয় দল (শুরা-সাদ) থেকে সম্পর্কহীন থাকবে। এ জন্য সম্মানিত ছাত্ররা দারুল উলূমের অভ্যন্তরে বহিরাগত বা ভিতরগত কোনও তাবলিগী কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করবেনা।

যদি দারুল উলূমের কোনো ছাত্রকে বা বহিরাগত কোনো ব্যক্তিকে দারুল উলূমের অভ্যন্তরে এমন কার্যক্রমে নজরে আসলে ছাত্ররা যেন তা থেকে বিরত থাকে এবং তড়িৎ জিম্মাদারদের অবগত করবে।

যদি কোনো ছাত্র নির্দেশনার অমান্যতা করে তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, তাবলীগের চলমান এ সঙ্কটের প্রেক্ষিতে গত বছরের শুরুতে দারুল উলুম দেওবন্দ ঘোষণা করে, দ্বন্দ্ব না মেটা পর্যন্ত দারুল উলূমের ভেতর তাবলীগের কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

বিষয়টি ক্লিয়ার করে কর্তৃপক্ষ বলেন, আমরা তাবলীগের সঙ্কট নিরসনে বিশ্বাসী। আমরা তাবলীগ জামাতের বিরুদ্ধে নই বরং তাবলীগ জামাতের আপস প্রত্যাশী।

দিল্লির নিযামুদ্দীনের মুরব্বি মাওলানা সাদ কান্ধলভীর আমির দাবি ও কিছু ভ্রান্ত মতামতের প্রেক্ষিতে তাবলীগের এ দ্বন্দ্বের সূচনা। উলামায়ে কেরাম এটি নিরসনের জন্য অনেক চেষ্টা করলেও মাওলানা সাদ তার নিজের ভুল থেকে এখনো স্পষ্টত ফিরে না আসায় দ্বন্দ্ব জিইয়ে রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.