নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ডা. জাহাঙ্গীর কবির

রাহবার ডেস্ক: নিজের ব্যাক্তিগত নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ডা. জাহাঙ্গীর কবির। শনিবার (৭ আগস্ট) সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করা এক ভিডিওতে তিনি তার নিরাপত্তাহীনতার কথা জানান।

ডা. জাহাঙ্গীর কবির আরও বলেন, এফডিএসআর এর চিঠিটা মিডিয়াতে যাওয়ার ফলে আমি ব্যক্তিগতভাবে, অর্থিকভাবে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। আমি আসলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমি পারিবারিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। আমার বাবা-মা কান্নাকাটি করেছে। বিভিন্ন মিডিয়াতে যখন এই খবরগুলো এসেছে তারা অনেক কষ্ট পেয়েছে।

এর আগে, রোববার (১ আগস্ট) জাহাঙ্গীর কবিরের কর্মকাণ্ডকে অবৈজ্ঞানিক, অসত্য, দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে উল্লেখ করে চিঠি দিয়েছে চিকিৎসকদের একটি সংগঠন ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি অ্যান্ড রাইটস (এফডিএসআর)।

ডা. জাহাঙ্গীর কবিরের ঠিকানায় কুরিয়ার সার্ভিসে পাঠানো এই চিঠিতে সংস্থাটির পক্ষে বলা হয়, ডা. জাহাঙ্গীর কবির কিটো ডায়েট নিয়ে ভুল এবং অসত্য তথ্য দিয়ে যাচ্ছেন। তিনি এই ডায়েটের স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে কোনো লিখিত বা মৌখিক কাউন্সেলিং করেন না। বরং ডায়াবেটিস, কিডনিসহ বিভিন্ন রোগীদের ব্যাপকভাবে কিটো ডায়েটের পরামর্শ দিয়ে ক্ষতি করছেন। তিনি বিভিন্ন চিকিৎসকের দেওয়া প্রেসক্রিপশনকে হেয় করে মন্তব্য করেছেন। করোনার টিকা নিয়ে ইম্যুনোলজি বিষয়ক ভুল বক্তব্য দিয়েছেন।

চিকিৎসকদের এই সংগঠন জাহাঙ্গীর কবিরের এসব কার্যক্রমকে ম্যালপ্র্যাকটিস বা অপচিকিৎসা বলে আখ্যা দিয়েছে ও তা চিকিৎসাবিজ্ঞানের নীতিবিরোধী ও জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর বলেছে।

এরপর মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) দুপুরে তার নিজস্ব ফেসবুকের ভেরিফায়েড পেজে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি তার ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চান।

উল্লেখ্য যে, ডাঃ জাহাঙ্গীর কবির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক জনপ্রিয়।

Tagged

নিখোঁজের ৫দিন পরও সন্ধান মেলেনি আবু ত্ব-হা আদনানের

রাহবার নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশে সামাজিক মাধ্যমে বহুল আলোচিত একজন ইসলামী বক্তা আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান নিখোঁজ হওয়ার পাঁচদিন পরও পুলিশ তার কোন হদিস করতে পারেনি।

তার পরিবারের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী এবং পুলিশ ও র‍্যাবের প্রধানদের বরাবরে চিঠি দিয়ে আবু ত্ব-হা আদনানকে খুঁজে বের করার দাবি জানানো হয়েছে।

আদনানের স্ত্রী বলেছেন, পুলিশ এবং র‍্যাবের সাথে দফায় দফায় যোগাযোগ করার পরও তারা কিছু জানতে পারছেন না।

গত বৃহস্পতিবার রাতে রংপুর থেকে ঢাকায় ফেরার পথে আদনান তার দু’জন সহকর্মী, গাড়ি চালক সহ চারজন নিখোঁজ হন। তাদের বহনকারী গাড়িটিরও কোন খোঁজ মেলেনি।

নিখোঁজ আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানের স্ত্রী সাবেকুন নাহার মঙ্গলবার ঢাকায় পুলিশ এবং র‍্যাব সদর দপ্তরে গিয়ে বাহিনী দু’টির প্রধানদের বরাবরে চিঠি জমা দিয়েছেন। এর আগে তিনি প্রধানমন্ত্রী বরাবরেও চিঠি লিখেছেন।

গত সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গেটে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের কাছে তিনি সেই চিঠি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

সাবেকুন নাহার বলেছেন, তিনি তার স্বামী নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছ থেকে কিছুই জানতে পারছেন না। সেজন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চেয়ে চিঠিগুলো লিখেছেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

“চিঠিতে আমার বক্তব্য হচ্ছে, আমি আমার স্বামীকে ফেরত চাই। যদি আমার স্বামী কোন ভুল করে থাকে বা তার যদি কোন অন্যায় থাকে, তারপরওতো আমাকে তথ্য জানাতে হবে যে সে কোথায় আছে। আমার তো এতটুকু জানার অধিকার আছে। কিন্তু আমি কোন কিছু জানতে পারছি না” – বলেন স্ত্রী সাবেকুন্নাহার।

তিনি অভিযোগ করেছেন, তার স্বামী নিখোঁজ হওয়ার পর মামলা করার জন্যও তাকে থানায় থানায় ঘুরতে হয়েছে। আদনান রংপুর থেকে ঢাকায় আসার পথে নিখোঁজ হন। কিন্তু ঠিক কোথা থেকে নিখোঁজ হয়েছেন – এই প্রশ্ন তুলে ঢাকার মিরপুর এলাকার দু’টি থানায় প্রথমে তাদের জিডিও নেয়া হয়নি।

শেষপর্যন্ত ঘটনার পরদিন শুক্রবার নিখোঁজ ঐ ব্যক্তির মা এবং স্ত্রী রংপুরে থানায় গিয়ে দু’টি জিডি করেছিলেন।

রংপুর মহানগর পুলিশের উপকমিশনার আবু মারুফ হোসেন বলেছেন, ঢাকার কাছাকাছি এলাকা থেকে নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে তারা নিশ্চিত হয়েছেন। তবে এখনও ঘটনার কোন সূত্র পাওয়া যায়নি বলে তিনি উল্লেখ করেন।

“আসলে সে নিখোঁজ হয়েছে ঢাকা থেকে। আমাদের কাছে দুটো জিডি হয়েছে। গাড়ির চালক এবং মি: আদনান ও তার দু’জন সহকর্মীসহ চারজন নিখোঁজ হয়েছে। তারা ভাড়া করা গাড়িতে একইসাথে ছিল।”

পুলিশ কর্মকর্তা মি: হোসেন আরও বলেছেন, “সর্বশেষ যোগাযোগ অনুযায়ী তারা ঢাকার গাবতলী পার হয়ে মিরপুর ১১ নম্বরের কাছাকাছি ছিল। সেখান থেকে তার পরিবারের সাথেও কথা হয়েছে। সে বলেছে তারা আর ১০ বা ১৫ মিনিটের মধ্যে পৌঁছে যাবে। কিন্তু এরপর থেকেই তারা ডিসকানেক্টেড হয়ে যায়। তাদের আর ট্রেস পাওয়া যায়নি।”

আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানের স্ত্রী সাবেকুন নাহার গত সোমবার মিরপুরের পল্লবী থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

তবে পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বিবিসিকে বলেছেন, ঢাকা থেকে নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে তারা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি।

তিনি জানিয়েছেন, অভিযোগ এখনও মামলা হিসাবে তারা গ্রহণ করেননি। কিন্তু তারা অভিযোগ খতিয়ে দেখছেন বলে তিনি দাবি করেন।

আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনান নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে পুলিশ এখনও কোন কুলকিনারা করতে পারছে না।

আদনানের একটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে। সেখানে তিনি ইসলাম সম্পর্কে বক্তব্য দিতেন।

এছাড়া তিনি দেশের বিভিন্ন জায়গায় ধর্মীয় সমাবেশে যেতেন বক্তা হিসাবে। কোরআন শিক্ষা দেয়ার জন্য তার একটি মাদ্রাসা ছিল।

তার পরিবারের কাছ থেকে এসব তথ্য পাওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ কর্মকর্তা আবু মারুফ হোসেন বলেছেন, আদনানের কর্মকাণ্ড, ব্যক্তিগত ও পারিবারিক জীবন সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে এসবের ওপর ভিত্তি করে তারা অনুসন্ধান কার্যক্রম চালাচ্ছেন।

“তার পেশাগত কিছু বিষয় থাকতে পারে বা ব্যক্তিগত জীবন- কোথাও কোন বিরোধ ছিল কিনা – এসব আমরা খতিয়ে দেখছি।”

আদনানের স্ত্রী বলেছেন, তার স্বামীর নিখোঁজ হওয়ার পেছনে কি কারণ থাকতে পারে- সেটা তারা ধারণা করতে পারছেন না।

একইসাথে তিনি ঘটনা সম্পর্কে বলেছেন, “উনি (আবু ত্ব-হা আদনান) আসলে রংপুর থেকে বগুড়ায় একটা প্রোগ্রামে আলোচক হিসাবে গিয়েছিলেন। সেই প্রোগ্রামটি কোন কারণে হয়নি। সেখান থেকে দু’জন সহকর্মীসহ গাড়িতে ঢাকা আসছিলেন।”

“উনি টেলিফোনে আমাকে বলেছিলেন যে, দু’টি মোটরসাইকেলে দু’জন লোক তাদের অনুসরণ করছিলো। একপর্যায়ে অনুসরণকারীদের তারা আর দেখতে পায়নি। তবে নিখোঁজ হওয়ার কোন কারণ আমি বুঝতে পারছি না” বলেন সাবেকুন নাহার।

তথ্যসূত্র: বিবিসি বাংলা

Tagged

হেফাজতের নতুন কমিটি ঘোষণা সোমবার, থাকছেন যারা

রাহবার২৪.কম: বহুল আলোচিত কওমি মাদরাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা হচ্ছে। তবে ঘোষিত এ কমিটি হবে আংশিক। পরবর্তীতে এতে আরও সংযোজন হবে।

সোমবার সকাল ১১টায় খিলগাঁও মাখজানুল উলুম মাদ্রাসায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন এ কমিটি ঘোষণা করা হবে। এতে রাজনৈতিক পরিচয়ধারী নেতাদের বাদ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে হেফাজতের এক কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, সরাসরি রাজনৈতিক দলের পদে আছেন এমন কাউকে খসড়া কমিটিতে রাখা হয়নি।

কমিটিতে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে আমির এবং মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদীকে মহাসচিব হিসেবে রাখা হয়েছে। কমিটির বর্তমান পরিধি ৩৮ সদস্যবিশিষ্ট হতে পারে। যেখানে প্রয়াত আমীর শাহ আহমদ শফীর বড় ছেলে মো. ইউসুফকেও রাখা হচ্ছে।

কমিটিতে মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী, মাওলানা সালাউদ্দিন নানুপুরী, অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান, মাওলানা মুহিব্বুল হক (সিলেট), মাওলানা উবায়দুর রহমান মাহবুব (বরিশাল) কয়েকজনকে নায়েবে আমির হিসেবে রাখা হয়েছে।

যুগ্ম মহাসচিব হিসেবে রয়েছেন- মাওলানা সাজিদুর রহমান (বি-বাড়িয়া), মাওলানা আবদুল আউয়াল (নারায়নগঞ্জ) ও মাওলানা আরশাদ রহমানী (বসুন্ধরা)।

কমিটি থেকে বাদ পড়তে যাচ্ছেন সদ্য বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক, নাছির উদ্দিন মুনির, সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী, কেন্দ্রীয় নেতা জাকারিয়া নোমান ফয়জী, খালিদ সাইফুল্লাহ আইয়ুবী, হাসান জামিল, মুফতি হারুন ইজহারসহ বেশ কয়েকজন আলোচিত নেতা।

গত বছরের ১৫ নভেম্বর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে আমির করে ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট হেফাজতের কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেখানে হেফাজতের প্রতিষ্ঠাতা আমির আল্লামা আহমদ শফীর ছেলে আনাস মাদানীসহ তার অনুসারী কাউকে রাখা হয়নি।

প্রসঙ্গত, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ আগমনকে কেন্দ্র করে গত মার্চের ২৫, ২৬ ও ২৭ তারিখ দেশজুড়ে যে সহিংস ঘটনা ঘটেছে, অন্তত ১৭ জন মানুষের প্রাণহানি হয়। এসব নাশকতার পেছনে জড়িত থাকার মিথ্যা অভিযোগে অনেক হেফাজত নেতা গ্রেফতার রয়েছেন।

তথ্যসূত্র: যুগান্তর

Tagged ,

মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে দুই দিনের রিমান্ড

রাহবার২৪.কম: জনপ্রিয় ওয়ায়েজ হাফেজ ক্বারী মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে (২৭) দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী পুলিশ কমিশনার (প্রসিকিউশন) শুভাশীষ ধর বলেন, রফিকুল ইসলামকে সাত দিনের জন্য রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে মঙ্গলবার গাজীপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করে পুলিশ। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

পুলিশ জানায়, রাষ্ট্রবিরোধী ও উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ায় মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে র‌্যাবের করা মামলায় ৮ এপ্রিল তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। বর্তমানে তিনি গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে বন্দী।

৭ এপ্রিল রফিকুল ইসলাম মাদানীকে তাঁর গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলার লেটিরকান্দা গ্রাম থেকে আটক করে র‌্যাব। পরের দিন র‍্যাবের নায়েক সুবেদার আবদুল খালেক বাদী হয়ে গাজীপুরের গাছা থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করেন।

Tagged , ,

রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে আল্লামা বাবুনগরীর আহবান

রাহবার২৪.কম: রহমত, মাগফেরাত ও নাজাতের মাস রমজানুল মোবারকের পবিত্রতা রক্ষা করতে সর্বস্তরের মুসলমানদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ।

১৪ এপ্রিল বুধবার গণমাধ্যমে আমীরে হেফাজতের খাদেম মুফতী জুনাইদ আহমদ কর্তৃক প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি এ আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, মহান আল্লাহ এই মাসে পবিত্র ‘কোরআনুল কারিম’ অবতীর্ণ করার মাধ্যমে এ মাসকে মহিমান্বিত এবং বরকতময় করেছেন। রমজানুল মোবারক আল্লাহ তায়ালার নৈকট্যলাভের বিশেষ এক মাস। মুসলিম উম্মাহর কাছে এ মাসের গুরুত্ব অপরিসীম। যাবতীয় পাপ কাজ পরিত্যাগ করে রমজান মাসের পবিত্রতা রক্ষা করা আমাদের সবার জন্য অপরিহার্য। তাই প্রত্যেকেই নিজে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করার পাশাপাশি অন্যকেও এ ব্যাপারে সচেতন করে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, মুসলমানদের আত্মশুদ্ধি লাভের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময় হচ্ছে রমজানুল মোবারক। আত্মশুদ্ধির জন্য প্রথম করণীয় হলো যাবতীয় পাপ কাজ পরিত্যাগ করে মহান প্রভুর ইবাদতে মনোনিবেশ করা। তাহলেই কেবল এ মাসে সিয়াম সাধনার মাধ্যমে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি ও নৈকট্য অর্জন হবে।

রমজানে চিনি-ভোজ্যতেলসহ অন্যান্য খাদ্যদ্রব্যের দাম না বাড়াতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, এ মাস একে অন্যের প্রতি সাহায্য-সহানুভূতির মাস। নিত্যপণ্যের দাম চড়া থাকলে সমাজের গরিব, মিসকিন, এতিম, অসহায় ও সাধারণ অনেক রোজাদার চাইলেও মনমতো ইফতার সাহরি করতে পারে না। তাই রমজানে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে রেখে রোজাদারদের ইফতার সাহরিতে বিশেষ সহায়তা করুন।

সমাজের গরিব, মিসকিন, এতিম, অসহায় ও সাধারণ মুসলমানদের জন্য ইফতার সামগ্রী বিতরণসহ আনন্দচিত্তে তারাও যেন ইফতার সাহরি করতে পারে সে ব্যবস্থা করতে সমাজের বিত্তবানদেন প্রতি আহ্বান জানান হেফাজত আমীর।

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, হাদীস শরিফে রাসুল (সা.) বলেছেন, যে ব্যক্তি কোনো রোজাদারকে ইফতার করাবে সে ব্যক্তির গুনাহ ক্ষমা করা হবে, জাহান্নাম থেকে মুক্তি দেয়া হবে এবং রোজাদারের সমপরিমাণ সওয়াব তাকে দেয়া হবে। তাই সমাজের বিত্তবানদের উচিত এ মাসে গরিব-দুঃখীদের খোঁজখবর রাখা।

তিনি আরও বলেন,করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে পুরো দেশ লকডাউন। দোকানপাট, রাস্তাঘাট সব কিছুই আজ বন্ধ। নেই কাজের কোন উৎস। করোনা আতংকে কার্যতই মানুষ আজ গৃহবন্দী হয়ে পড়েছে। এই পরিস্থিতিতে রুজি রোজগার করতে না পেরে খেটে খাওয়া দিনমজুররা খাদ্য সংকটে অসহায় অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছে।

তাই রহমতের মাস রমজানুল মোবারকে করোনায় সৃষ্ট উদ্ভুত পরিস্থিতিতে দূর্দশাগ্রস্থ পরিবারের পাশে খাদ্যদ্রব্য, নগদ অর্থ সহ জরুরী ত্রাণসামগ্রী নিয়ে সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসুন।

তিনি আরো বলেন,মহামারির এই নাজুক সময়ে গরিব-দুঃখী মুসলমানদের মাঝে সাধ্যানুযায়ী ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা আমাদের সবার অন্যতম দায়িত্ব। তারা আমাদের ভাই, সারাদিন রোজা রাখার পর তারাও যেন আনন্দচিত্তে ইফতার করতে পারে সে ব্যবস্থাটুকু করে দেয়া আমাদেরই দায়িত্ব ও কর্তব্য। তাই অসহায় দুঃস্থদের প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখতে সমাজের বিত্তবানদের প্রতি আমি আহ্বান জানাচ্ছি ।

এছাড়া অধিনস্থ কর্মজীবীদের কর্ম হালকা করা, দিনের বেলায় হোটেল রেস্তোরা বন্ধ রাখা, টিভি সিনেমা বন্ধ রাখা, গীবত, পরনিন্দা, হিংসা-বিদ্বেষ, চোগলখুরি, অহঙ্কার ও কৃপণতার মতো গর্হিত কাজগুলো পরিত্যাগ করাসহ যাবতীয় গুনাহের কাজ থেকে বেঁচে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করে একাগ্রতার সহিত পুরো মাস ইবাদত করে আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি ও নৈকট্য লাভের আহ্বান জানান আমীরে হেফাজত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

বার্তাপ্রেরক
মুফতী জুনাইদ আহমদ
খাদেম, আমীরে হেফাজত
01762324968

Tagged ,

মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে কাশিমপুর কারাগারে স্থানান্তর

রাহবার২৪.কম: তরুণ ইসলামী আলোচক মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে গাজীপুর জেলা কারাগার থেকে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এ পাঠানো হয়েছে। আজ শনিবার (১০ এপ্রিল) সকাল র‍্যাব-পুলিশের কড়া প্রহরায় তাকে স্থানান্তর করা হয়। গাজীপুর জেলা কারাগারের সুপার বজলুর রশিদ আকন্দ বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) র‍্যাব বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গাজীপুরের গাছা থানায় মামলা করে।

পরে ঢাকায় তার নামে আরও একটি মামলা করা হয়। এর আগের দিন বুধবার (৭ এপ্রিল) ভোরে রফিকুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার পূর্বধলা উপজেলার লেটিরকান্দা থেকে তাকে আটক করে র‍্যাব।

Tagged ,

রাবেতাতুল ওলামা নেত্রকোনা নামে নতুন সংগঠনের আত্মপ্রকাশ

রাহবার নিউজ ডেস্ক: দ্বীনি ও সেবামূলক কার্য সম্পাদনের লক্ষ্যে ওলামায়ে কেরামের ঐক্যবদ্ধে প্রতিনিধিত্ব করতে হাটহাজারী ও মেখল মাদরাসায় পড়ুয়া নেত্রকোনার তরুণ আলেমদের নিয়ে রাবেতাতুল ওলামা নেত্রকোনা বাংলাদেশ নামের নতুন সংগঠনের আত্মপ্রকাশ হয়েছে।

গতকাল ৩০ মার্চ মঙ্গলবার বাদ মাগরিব হাটহাজারী ঈগাহ আবাসিকস্থ কওমি ভিশন মিলনায়তনে এক জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে এ সংগঠনের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

মুফতী জুনাইদ আহমদের সঞ্চালনায়
আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও পূর্নবাসন সম্পাদক, মেখল মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক ও মুফতী মাওলানা মুফতী মুহাম্মদ আলী কাসেমী।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ও মেখল মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী। বিশেষ অতিথি ছিলেন,
হাটহাজারী আরবী বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক ও রাবেতাতুল ওলামার উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য মুফতী আবদুল হামিদ।

আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে বক্তাগণ বলেন,
দেশ ও জাতীর এই ক্লান্তিলগ্নে মুসলিম উম্মাহর ঈমান আকিদা রক্ষায় ওলামায়ে কেরাম ঐক্যবদ্ধ প্ল্যাটফর্মে এসে কাজ করা সময়ের অপরিহার্য দাবী। ঐক্যবদ্ধ না থাকলে চলমান ও আগত চতুর মুখী ষড়যন্ত্রের মোকাবেলা করা সম্ভব হবে না।

বক্তাগণ আরো বলেন, নবীন আলেমদের দায়িত্ব অনেক বেশি৷ সময়ের চাহিদা পূরণে ইসলামের দাওয়াত নিয়ে তাদেরকে আরো বেশি অগ্রসর হতে হবে। উম্মাহর ঈমান আকিদা বিশুদ্ধকরণ ও সংরক্ষণে এবং ইসলাম বিধ্বংসী ফেরকা সমূহের মূলোৎপাটনে সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা হাতে নিয়ে ইলমি ও ফিকরি কাজ করতে হবে। লিখনী,বয়ান বক্তৃতা সহ সমূহ পদ্ধতিতে ফেরাকে বাতেলা সহ ইসলাম বিরোধী সমস্ত অপশক্তির মোকাবিলা করতে হবে।

আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানের সভাপতি মুফতী মুহাম্মদ আলী কাসেমী ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করেন। এতে মুফতী আতাউর রহমানকে সভাপতি এবং মুফতী জুনাইদ আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

সদ্য প্রয়াত মেখল মাদরাসার মহাপরিচালক আল্লামা নোমান ফয়জী রহ. ও গত ২৬ মার্চ মোদি বিরোধী আন্দোলনে শহীদদের জন্য বিশেষ দুআ করে অনুষ্ঠান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

Tagged , , ,

মোদি বিরোধী হাটহাজারী রণক্ষেত্র, মাদরাসা ছাত্রসহ পাঁচজন শহীদ

রাহবার নিউজ ডেস্ক: জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে মুসল্লিদের ওপর দফায় দফায় পুলিশ ও যুবলীগ-ছাত্রলীগের হামলার ঘটনার প্রতিবাদে চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে বিক্ষোভরত হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্রদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে তিনজন মাদরাসাছাত্র এবং বাকি দুইজনের পরিচেয় পাওয়া যায়নি। ৫ জনের মরদেহ চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে রয়েছে। নিহত তিন মাদরাসাছাত্র হলেন মেরাজুল ইসলাম, রবিউল ইসলাম ও জাহাঙ্গীর আলম।

জানা গেছে, শুক্রবার (২৬ মার্চ) রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মসজিদে মুসল্লি ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনার প্রতিবাদে চট্টগামে হাটহাজারীতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্ররা।

পুলিশের দাবি, বিক্ষোভকারীরা হাটহাজারী থানায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এদিকে ফাঁকা গুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করা চেষ্টা চালায় পুলিশ।

এদিকে নিহত ও আহত মাদরাসার ছাত্রদের দেখতে চট্টগ্রাম মেডিকেলে গিয়েছেন হেফাজতের আমীর ও হাটহাজারী মাদরাসার শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী। সাথে ছিলেন শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মুফতী হারুন ইজহার ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী।

Tagged , ,

আবারো বাংলাদেশে আসছেন আল্লামা মাহমুদ মাদানী

রাহবার২৪.কম: ইসলাহী মাহফিলে অংশ নিতে বাংলাদেশে আসছেন জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সেক্রেটারি, আওলাদে রাসূল আল্লামা সাইয়েদ মাহমুদ মাদানী। রাজধানীর আল-জামিয়াতুল ইসলামিয়া ইদারাতুল উলুম ঢাকা আফতাব নগর মসজিদ-মাদরাসা কমপ্লেক্স ও মাদানী খানকার উদ্যোগে আয়োজিত ইসলাহী মাহফিলে যোগ দিতে তিনি বাংলাদেশে আসবেন।

আগামী বুধবার (২৪ মার্চ) অনুষ্ঠিত হবে আফতাবনগর মাদরাসায় এ ইসলাহী মাহফিল। বিষয়টি আল-জামিয়াতুল ইসলামিয়া ইদারাতুল উলুম ঢাকা আফতাব নগর মাদরাসার প্রিন্সিপাল ও শায়খুল হাদীস মুফতি মুহাম্মদ আলী গণমাধ্যম কে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, হজরত হোসাইন আহমদ মাদানী রহ. এর দৌহিত্র সাইয়েদ আল্লামা মাহমুদ মাদানী আগামী ২২ মার্চ (সোমবার) বাংলাদেশের হজরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন। ওইদিন তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সফর করবেন। এরপর ২৩ মার্চ (মঙ্গলবার) দেশের সিলেট অঞ্চল সফর করবেন তিনি। সফরে তার সাথে দেশের শীর্ষস্থানীয় ওলামায়ে কেরাম অংশ নিবেন।

মুফতি মোহাম্মদ আলী আরও জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও সিলেটে সফর শেষে আগামী ২৪ মার্চ (বুধবার) বিকাল চারটায় রাজধানীর আফতাবনগর মাদরাসার ইসলাহী মাহফিলে তাশরীফ আনবেন তিনি। এরপর ওইদিন বাদ আসর বাংলাদেশি মুরিদদের সাথে বিশেষ সাক্ষাৎ করবেন। বাদ মাগরিব ইসলাহী বয়ান ও বাইয়াত করবেন আল্লামা মাহমুদ মাদানী। এছাড়া ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বিভিন্ন সেমিনার ও কর্মসূচিতে অংশ নিবেন তিনি।

Tagged , ,

মোদীর আগমন প্রতিহত করা এদেশের মুসলমানদের ইমানি দায়িত্ব : হেফাজতে ইসলাম

রাহবার নিউজ ডেস্ক: সুনামগঞ্জে হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলার প্রসঙ্গে সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ মোদীর আগমনের বিরোধিতা করে বার্তা দিয়েছে।

সংবাদ মাধ্যমে প্রেরিত বিবৃতিতে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন,

আমাদের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে বাংলাদেশে গুজরাটে মুসলমানদের ওপর গণহত্যার মূল হোতা এবং কাশ্মিরের স্বাধীনতাকামী মুসলমানদের ওপর বর্বরোচিত জুলুম নিপীড়নকারী নরেন্দ্র মোদীর আগমন প্রতিহত করা এদেশের মুসলমানদের ঈমানি দায়িত্ব। কোনো ধরনের সাবোট্যাজ ঘটিয়ে সচেতন জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে ঘুরিয়ে দেয়া যাবে না।

এদিকে বাংলাদেশে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদীর আগমনের প্রতিবাদে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ইতোমধ্যে বিভিন্ন দল, সংগঠন বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে। শুক্রবার বাদ জুমা ঢাকার রাজপথ মোদীর আগমন বিরোধীদের দখলে ছিল। সোশ্যাল মিডিয়ায় মোদীর আগমনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেকেই। এদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের অনিচ্ছাসত্ত্বে একজন প্রধানমন্ত্রীর সফর কতটা সম্মানজনক তা নিয়ে প্রশ্ন জনমনে।

Tagged , ,